সোমবার, এপ্রিল ১২

ভোট ডাকাতিসহ নানা অভিযোগ ফলাফল বর্জনে সম্মেলন ঠাকুরগাঁও জেলা বিএনপির

নিউজ ডেস্কঃ দু’একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা সহ ঠাকুরগাঁও সদর পৌরসভা ভোট কেন্দ্রে প্রতিপক্ষ দলের এজেন্টদের প্রভাব বিস্তারের অভিযোগ তুলে ফলাফল যাই হোক তা বর্জনের ঘোষনা দিয়েছে জেলা বিএনপি।
আজ রোববার বেলা ১২টায় জেলা বিএনপি’র পক্ষ থেকে দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এ ঘোষনা দেন।
এর আগে সরকারি মহিলা কলেজ ভোট কেন্দ্রে হাতবোমা বিস্ফোরণ, সবুজ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গোপন কক্ষে এজেন্টরা প্রবেশ করে প্রার্থীর পক্ষে ভোট প্রদানে বাধ্য করাসহ কাউন্সিলর প্রার্থী সমর্থকদের মধ্যে পাল্টা পাল্টি হামলা ও সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রভাব বিস্তারের অভিযোগ পাওয়া যায়। এছাড়াও বেশকয়েটি ভোট কেন্দ্রে ভোটারদের বাধাগ্রস্ত্রেরও অভিযোগ উঠে। পরে জেলা বিএনপির পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন করে এমন সিদ্ধান্ত গ্রহন করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মির্জা ফয়সাল আমীন।
সদর পৌরসভায় মেয়র পদে আ’লীগ ও বিএনপির দুজন ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের একজনসহ তিনজন প্রার্থী প্রতিদ্বদ্বীতা করছেন। আর কাউন্সিলর পদে ৫৩ জন ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ৯জন প্রার্থী প্রতিদ্ব›দ্বীতা করছেন। এ পৌরসভায় ভোটার সংখ্যা ৬০ হাজার ৭২৭ জন।
রাণীশংকৈল পৌরসভায় মেয়র পদে ১২ জন প্রার্থী প্রতিদ্ব›দ্বীতা করছেন। কাউন্সিলর পদে ৩৩ জন ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ১৩জন প্রার্থী প্রতিদ্বদ্বীতা করছেন। এ পৌরসভায় ভোটার সংখ্যা ১৪ হাজার ৭০২ জন। আর এ দুটি পৌরসভার কেন্দ্রের সংখ্যা ৩০ টি। শান্তিপূর্ন ভোট গ্রহনে দুটি পৌরসভায় পাঁচ প্লাটুন বিজিবি, র‌্যাবের ৭টি টিম, প্রতিটি কেন্দ্রে একজন করে নির্বাহী মেজিস্ট্রেট, ১৬টি ভিজিলেস টিম ও পুলিশ সদস্যসহ অতিরিক্ত আইনশৃংখলা বাহিনী মোতায়েন রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *