বুধবার, সেপ্টেম্বর ২২

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের শঙ্কা

নিউজ ডেস্কঃ ইউক্রেনে বসবাসকারী রুশ সমর্থিত বিদ্রোহীদের ওপর হামলা চালানো হলে রাশিয়া তার উপযুক্ত জবাব দেবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে। সম্প্রতি ইউক্রেন সীমান্তে, নিজেদের সেনা উপস্থিতি বাড়ানোর পর চলমান উত্তেজনার মধ্যেই এমন হুমকি দিল দেশটি। আর ইউক্রেনের পক্ষ থেকেও সেনাদের সতর্ক অবস্থানে থাকতে বলা হয়েছে। দুই প্রতিবেশীর মধ্যে নতুন করে সংঘাতের আশঙ্কা দেখা দেয়ায় উদ্বেগ জানিয়েছে পশ্চিমা দেশগুলো।

গত কয়েক দিন ধরেই ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলীয় সীমান্তে রুশ সেনাদের উপস্থিতি বাড়তে থাকায় সতর্ক অবস্থানে কিয়েভ। বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) সংঘাতপূর্ণ ওই এলাকা পরিদর্শনে যান ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভোলোদিমির জেলেনেস্কি। এ সময় নিজ দেশের সেনাদের প্রতি একাত্মতা প্রকাশ করেন তিনি।

দোনবাসে প্রতিদিনই হামলার আশঙ্কা ঘনীভূত হচ্ছে। এ অবস্থায় সেনাদের মনোবল ধরে রাখা সবচেয়ে বেশি জরুরি। সরকারের পূর্ণ সমর্থন রয়েছে আপনাদের প্রতি।

চলতি সপ্তাহে ইউক্রেনের ৫ সেনা সদস্য নিহত হওয়ার খবরে আবারও যুদ্ধের আশঙ্কা বাড়ছে দুই দেশের মধ্যে। এরই মধ্যে ইউক্রেনে অবস্থানরত রুশ সমর্থিত বিদ্রোহীদের ওপর নির্যাতনের ঘটনা ঘটলে মস্কোর সেনারা তাতে হস্তক্ষেপ করবে বলে সতর্ক করেছে রাশিয়ার জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা দিমিত্রি কোজাক। এ সময় নতুন করে দুই দেশের মধ্যে সংঘাত শুরু হলে তার পরিণাম ভয়াবহ হবে বলেও হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

উত্তেজনা আবারও বাড়তে থাকায় উদ্বেগ প্রকাশ করে সীমান্ত থেকে সেনা সরিয়ে নিতে রাশিয়ার প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ইউক্রেনের মিত্র দেশ যুক্তরাষ্ট্র। বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র জানান, সেখানকার পরিস্থিতি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে ওয়াশিংটন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেলে ইউক্রেনের প্রতি সমর্থন জানাতে কৃষ্ণ সাগরে নিজেদের যুদ্ধজাহাজ পাঠানোর হুঁশিয়ারিও দিয়েছে দেশটি। যদিও কৃষ্ণসাগরে প্রবেশ করতে অন্তত ১৪ দিন আগে কর্তৃপক্ষকে অবগত করার নিয়ম থাকায় যুক্তরাষ্ট্র এ ধরনের কোনো নোটিশ দিয়েছে কিনা তা জানা যায়নি।

এদিকে ইউক্রেন সীমান্ত থেকে সেনা সরিয়ে নিতে রাশিয়ার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেলও।

গত ৭ বছর আগে ইউক্রেনের কাছ থেকে ক্রিমিয়ার নিয়ন্ত্রণ নেয় রাশিয়া। এরপর থেকেই ওই অঞ্চলে রুশ সমর্থিত বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সঙ্গে ইউক্রেনের লড়াই চলছে। তবে গত কয়েক দিনে নতুন করে সে উত্তেজনা বাড়তে শুরু করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *